Blog

Departments

Departments


S.L Departments Name Subordinate Offices
1. Mayor Office
2.
3.
4.
5 Engineering Department

 

Electrical
Traffic
Environment
6. Accounts
7. Audit
8. Estate
9. Health
10. ICT Cell
11. Law
12. Public Relation Department
13. Revenue
14 Social Welfare
15. Solid Wast
16. Store & Purchase Department
17. Transport
18. Urban Planning Department

AT A GLANCE

এক নজরে পৌরসভা


  সান্তাহার পৌরসভা

                 সান্তাহার পৌরসভা বাংলাদেশের রাজশাহী বিভাগের বগুড়া জেলার একটি স্থানীয় সরকার সংস্থা। ১৯৮৮ সালে প্রতিষ্ঠিত এই পৌরসভাটি বাংলাদেশের একটি ‘‘ক’’ শ্রেনীভূক্ত পৌরসভা।

অবস্থান ও আয়তন

সান্তাহার পৌরসভাটি রাজশাহী বিভাগের বগুড়া জেলার অন্তর্গত আদমদীঘি উপজেলার পশ্চিম সীমানা এবং নওগাঁ জেলার পূর্ব সীমানা ঘেসে বৃহত্তর সান্তাহার রেলওয়ে জংশন ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকা নিয়ে গঠিত। এর আয়তন ১০.৫৪০ বর্গ কিলোমিটার।

Map:

সান্তাহারের ইতিহাস

সংক্ষেপে সান্তাহারের ইতিহাস:


                                          বগুড়া জেলার অন্তর্গত আদমদীঘি উপজেলার পশ্চিম সীমানা এবং নওগাঁ জেলার পূর্ব সীমানা ঘেঁসে সান্তাহার রেলওয়ে জংশন ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকা নিয়ে ১০.৫৪০ বর্গ কিলোমিটার আয়তন বিশিষ্ট সান্তাহার পৌরসভা ১৯৮৮ সালে মে মাসে স্থাপিত হয়। পৌরসভার বর্তমান নয়টি (৯) ওয়ার্ড মিলে জনসংখ্যা ৩১ হাজার ৩৭ জনের (একত্রিশ হাজার সায়ত্রিশ) বেশি। বর্তমানে পৌরসভাটি ‌’ক’ শ্রেণী ভূক্ত ।

        সান্তাহার একটি রেল প্রসিদ্ধ শহর। অধুনা উত্তরবঙ্গের সঙ্গে ঢাকা ও খুলনার রেল যোগাযোগ সান্তাহারের উপর দিয়ে হয়। তৎকালীন অবিভক্ত ভারত বর্ষে সান্তাহার থেকে ভারত তথা কলকাতা, দার্জিলিংসহ ভারতের বিভিন্ন শহরে দার্জিলিং মেইল নামে খ্যাত রেলগাড়ির মাধ্যমে যাত্রা করা যেত। সান্তাহার রেলপ্রসিদ্ধ শহর বিধায় পাকিস্তান আমলে তৎকালীন পাকিস্তান সরকার সান্তাহারে বিহারীদের সান্তাহারে পূর্ণবাসন করে। ১৯৭১ সালে সান্তাহারের মুক্তিযোদ্ধরা ও আপামোর জনগণ মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহণ করার পাশাপাশি বিহারীদের উৎখাত করেন।

             সান্তাহারে বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা অবস্থিত। যেমন- সাইলো, সিএসডি, এলএসডি, বাফার খাদ্যগুদাম, সওজ কারখানা, ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন পিকিং পাওয়ার প্লান্টসহ বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা। এছাড়া একটি সরকারি কলেজ, একটি সরকারি উচ্চবালিকা বিদ্যালয়, সকল ওয়ার্ডে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রেও সান্তাহার একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর। নওগাঁ জেলা ও আশেপাশের সকল এলাকার সড়ক যোগাযোগ সান্তাহারের মাধ্যমেই হয়। সান্তাহারের জলবায়ু স্বাভাবিক। প্রাকৃতিক দূর্যোগ তেমন লক্ষ্য করা যায় না। মাটি উর্বর বিধায় ফসলাদি ভাল উৎপন্ন হয়। সান্তাহারের সজনে ডাটা দেশের বিভিন্ন স্থানে সবজি হিসাবে রপ্তানি হয়। সান্তাহার রাজনৈতিক সহিংসতা মুক্ত শহর। ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেণী পেশার মানুষ এখানে একত্রে বসবাস করে।

তথ্যসূত্র: সান্তাহার পৌরসভা ওয়েব  সান্তাহার পৌরসভা ওয়েব  টিম/১৫-০৪-২০১৬ইং


সান্তাহার একটি রেল প্রসিদ্ধ শহর। অধুনা উত্তরবঙ্গের সাথে ঢাকা ও খুলনার রেল যোগাযোগ সান্তাহারের উপর দিয়ে হয়ে থাকে। তৎকালিন অবিভক্ত ভারত বর্ষে সান্তাহার থেকে ভারত তথা কলিকাতা, দার্জিলিং সহ ভারতের বিভিন্ন শহরে দার্জিলিং মেইল নামে খ্যাত রেলগাড়ীর মাধ্যমে গমণ করা যেত। সান্তাহার রেলপ্রসিদ্ধ শহর বিধায় পাকিস্তান আমলে তৎকালিন পাকিস্তান সরকার সান্তাহারে বিহারীদের সান্তাহারে পূর্ণবাসন করে।

১৯৭১ সালে সান্তাহারের বীরমুক্তিযোদ্ধরা ও আপামোর জনগণ মুক্তিযোদ্ধে অংশ গ্রহণ করার পাশাপাশি বিহারীদের উৎখাত করেন। সান্তাহারে বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা অবস্থিত যেমন, সাইলো, সিএসডি, এলএসডি, বাফার খাদ্যগুদাম, সওজ কারখানা, ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন পিকিং পাওয়ার প্লান্ট সহ বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা।


 

About Bogra district

About Bogra:

Bogra is a northern district of Bangladesh, in the Rajshahi Division. It is called the gateway to North Bengal. It is also a bridge between Rajshahi Division and Rangpur Division. Bogra is an industrial city where many small and mid-sized industries are sited. Mahasthangarh, the earliest urban archaeological site so far discovered in Bangladesh is located in Bogra.

 

Santahar railway station

Santahar is a railway junction in Santahar Municipality in Bogra District of Rajshahi Division in Bangladesh.

From 1878, the railway route from [[Kolkata]], then called Calcutta, to [[Siliguri]] was in two laps. The first lap was a 185&nbsp;km journey along the Eastern Bengal State Railway from Calcutta Station (later renamed Sealdah) to Damookdeah Ghat on the southern bank of the [[Padma River]], then across the river in a ferry and the second lap of the journey. A 336&nbsp;km metre gauge line of the North Bengal Railway linked Saraghat on the northern bank of the Padma to Siliguri.<ref name=njp>{{cite web| url = http://www.irfca.org/docs/rinbad-siliguri.html|title = India: the complex history of the junctions at Siliguri and New Jalpaiguri | publisher= [[IRFCA]]|accessdate = 2011-12-26 }}</ref> It was during this period that Santahar came up as a railway station.

In 1899-1900 a metre gauge railway line was constructed between Santahar and Fulchhari, on the western bank of the [[Jamuna River (Bangladesh)|Jamuna]] by Brahmaputra-Sultanpur Railway Company.<ref name=history>{{cite web| url =http://www.railway.gov.bd/brief_history.asp |title = Brief History| publisher= Bangladesh Railway| archiveurl = https://web.archive.org/web/20111220203245/http://www.railway.gov.bd/brief_history.asp| archivedate = 2011-12-20| accessdate = 2011-12-26 }}</ref>

The Kolkata-Siliguri main line was converted to broad gauge in stages. The Shakole-Santahar section was converted in 1910-1914, when [[Hardinge Bridge]] was under construction. The Harding

 

 

ইতিহাস

সংক্ষেপে সান্তাহারের ইতিহাস

বগুড়া জেলার অন্তর্গত আদমদীঘি উপজেলার পশ্চিম সীমানা এবং নওগাঁ জেলার পূর্ব সীমানা ঘেঁসে সান্তাহার রেলওয়ে জংশন ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকা নিয়ে ১০.৫৪০ বর্গ কিলোমিটার আয়তন বিশিষ্ট সান্তাহার পৌরসভা ১৯৮৮ সালে মে মাসে স্থাপিত হয়। পৌরসভার বর্তমান নয়টি (৯) ওয়ার্ড মিলে জনসংখ্যা ৩১ হাজার ৩৭ জনের (একত্রিশ হাজার সায়ত্রিশ) বেশি। বর্তমানে পৌরসভাটি ‌’খ’ শ্রেণী ভূক্ত । সান্তাহার একটি রেল প্রসিদ্ধ শহর। অধুনা উত্তরবঙ্গের সঙ্গে ঢাকা ও খুলনার রেল যোগাযোগ সান্তাহারের উপর দিয়ে হয়। তৎকালীন অবিভক্ত ভারত বর্ষে সান্তাহার থেকে ভারত তথা কলকাতা, দার্জিলিংসহ ভারতের বিভিন্ন শহরে দার্জিলিং মেইল নামে খ্যাত রেলগাড়ির মাধ্যমে যাত্রা করা যেত। সান্তাহার রেলপ্রসিদ্ধ শহর বিধায় পাকিস্তান আমলে তৎকালীন পাকিস্তান সরকার সান্তাহারে বিহারীদের সান্তাহারে পূর্ণবাসন করে। ১৯৭১ সালে সান্তাহারের মুক্তিযোদ্ধরা ও আপামোর জনগণ মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহণ করার পাশাপাশি বিহারীদের উৎখাত করেন। সান্তাহারে বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা অবস্থিত। যেমন- সাইলো, সিএসডি, এলএসডি, বাফার খাদ্যগুদাম, সওজ কারখানা, ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন পিকিং পাওয়ার প্লান্টসহ বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা। এছাড়া একটি সরকারি কলেজ, একটি সরকারি উচ্চবালিকা বিদ্যালয়, সকল ওয়ার্ডে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রেও সান্তাহার একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর। নওগাঁ জেলা ও আশেপাশের সকল এলাকার সড়ক যোগাযোগ সান্তাহারের মাধ্যমেই হয়। সান্তাহারের জলবায়ু স্বাভাবিক। প্রাকৃতিক দূর্যোগ তেমন লক্ষ্য করা যায় না। মাটি উর্বর বিধায় ফসলাদি ভাল উৎপন্ন হয়। সান্তাহারের সজনে ডাটা দেশের বিভিন্ন স্থানে সবজি হিসাবে রপ্তানি হয়। সান্তাহার রাজনৈতিক সহিংসতা মুক্ত শহর। ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেণী পেশার মানুষ এখানে একত্রে বসবাস করে। তথ্যসূত্র: সান্তাহার পৌরসভা ওয়েব সান্তাহার ডটকম/সান্তাহার ডটকম টিম/১৫-০৪-২০১৬ইং

সান্তাহার একটি রেল প্রসিদ্ধ শহর। অধুনা উত্তরবঙ্গের সাথে ঢাকা ও খুলনার রেল যোগাযোগ সান্তাহারের উপর দিয়ে হয়ে থাকে। তৎকালিন অবিভক্ত ভারত বর্ষে সান্তাহার থেকে ভারত তথা কলিকাতা, দার্জিলিং সহ ভারতের বিভিন্ন শহরে দার্জিলিং মেইল নামে খ্যাত রেলগাড়ীর মাধ্যমে গমণ করা যেত। সান্তাহার রেলপ্রসিদ্ধ শহর বিধায় পাকিস্তান আমলে তৎকালিন পাকিস্তান সরকার সান্তাহারে বিহারীদের সান্তাহারে পূর্ণবাসন করে। ১৯৭১ সালে সান্তাহারের বীরমুক্তিযোদ্ধরা ও আপামোর জনগণ মুক্তিযোদ্ধে অংশ গ্রহণ করার পাশাপাশি বিহারীদের উৎখাত করেন। সান্তাহারে বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা অবস্থিত যেমন, সাইলো, সিএসডি, এলএসডি, বাফার খাদ্যগুদাম, সওজ কারখানা, ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন পিকিং পাওয়ার প্লান্ট সহ বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা।


ভূগোল

সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রেও সান্তাহার একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর। নওগাঁ জেলা ও আশেপাশের সকল এলাকার সড়ক যোগাযোগ সান্তাহারের মাধ্যমেই হয়ে থাকে। সান্তাহারের জলবায়ু স্বাভাবিক। প্রাকৃতিক দূর্যোগ তেমন লক্ষ্য করা যায় না। মাটি উর্বর বিধায় ফসলাদি ভাল উৎপন্ন হয়। সান্তাহারের সজনে ডাটা দেশের বিভিন্ন স্থানে সবজি হিসাবে রপ্তানি করা হয়।


জনসংখ্যা

২০১১ সালের আদমশুমারী অনুসারে সান্তাহার পৌরসভার বর্তমান মোট জনসংখ্যা ৩১,০৩৭ জন (ভাসমান মানুষ ৭৬ জন + পরিবারের সদস্য সংখ্যা ৩০,৯৬১ জন)। এরমধ্যে

(১৫,৭১৩ জন পুরুষ এবং ১৫,৩২৪ জন মহিলা)।

প্রতি ওয়ার্ড অনুসারে জনসংখ্যাঃ

০১. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৪,৩৩০ জন;

০২. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৩,৪৬০ জন;

০৩. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৩,৬৬১ জন;

০৪. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৩,২৬০ জন;

০৫. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৪,০২৩ জন;

০৬. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৩,১৬০ জন;

০৭. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৩,৮০৬ জন;

০৮. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ৩,০২৫ জন;

০৯. নং ওয়ার্ডের জনসংখ্যা ২,৩১২ জন।


শিক্ষা ব্যবস্থা

এখানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৯ টি ।

  1. বশিপুর সরকারি বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ১
  2. পৌঁওতা সরকারি বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০২
  3. পৌর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০৩
  4. এস, এম, আই, একাডেমী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০৩
  5. বি,পি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০৪
  6. হার্ভে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০৫
  7. কলসা আহসান উল্লাহ্ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০৬
  8. মালশন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০৮
  9. তারাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ার্ড নং- ০৯

সরকারি কলেজ ০১ টি।

  • সান্তাহার সরকারি কলেজ, সান্তাহার, বগুড়া।

নির্বাচিত প্রতিনিধি

বিগত ২০১১ সালের ১২ জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচনে তোফাজ্জল হোসেন ভুট্ট মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

Santahar Municipality in Bogra

সান্তাহারের ইতিহাস ও ঐতিয্য


সান্তাহারের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস:

                                          বগুড়া জেলার অন্তর্গত আদমদীঘি উপজেলার পশ্চিম সীমানা এবং নওগাঁ জেলার পূর্ব সীমানা ঘেঁসে সান্তাহার রেলওয়ে জংশন ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকা নিয়ে ১০.৫৪০ বর্গ কিলোমিটার আয়তন বিশিষ্ট সান্তাহার পৌরসভা ১৯৮৮ সালে মে মাসে স্থাপিত হয়। পৌরসভার বর্তমান নয়টি (৯) ওয়ার্ড মিলে জনসংখ্যা ৩১ হাজার ৩৭ জনের (একত্রিশ হাজার সায়ত্রিশ) বেশি। বর্তমানে পৌরসভাটি ‌’ক’ শ্রেণী ভূক্ত ।


সান্তাহার এর  ঐতিয্য:

                সান্তাহার একটি রেল প্রসিদ্ধ শহর। অধুনা উত্তরবঙ্গের সঙ্গে ঢাকা ও খুলনার রেল যোগাযোগ সান্তাহারের উপর দিয়ে হয়। তৎকালীন অবিভক্ত ভারত বর্ষে সান্তাহার থেকে ভারত তথা কলকাতা, দার্জিলিংসহ ভারতের বিভিন্ন শহরে দার্জিলিং মেইল নামে খ্যাত রেলগাড়ির মাধ্যমে যাত্রা করা যেত। সান্তাহার রেলপ্রসিদ্ধ শহর বিধায় পাকিস্তান আমলে তৎকালীন পাকিস্তান সরকার সান্তাহারে বিহারীদের সান্তাহারে পূর্ণবাসন করে। ১৯৭১ সালে সান্তাহারের মুক্তিযোদ্ধরা ও আপামোর জনগণ মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহণ করার পাশাপাশি বিহারীদের উৎখাত করেন। সান্তাহারে বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা অবস্থিত। যেমন- সাইলো, সিএসডি, এলএসডি, বাফার খাদ্যগুদাম, সওজ কারখানা, ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন পিকিং পাওয়ার প্লান্টসহ বিভিন্ন সরকারি স্থাপনা। এছাড়া একটি সরকারি কলেজ, একটি সরকারি উচ্চবালিকা বিদ্যালয়, সকল ওয়ার্ডে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রেও সান্তাহার একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর। নওগাঁ জেলা ও আশেপাশের সকল এলাকার সড়ক যোগাযোগ সান্তাহারের মাধ্যমেই হয়। সান্তাহারের জলবায়ু স্বাভাবিক। প্রাকৃতিক দূর্যোগ তেমন লক্ষ্য করা যায় না। মাটি উর্বর বিধায় ফসলাদি ভাল উৎপন্ন হয়। সান্তাহারের সজনে ডাটা দেশের বিভিন্ন স্থানে সবজি হিসাবে রপ্তানি হয়। সান্তাহার রাজনৈতিক সহিংসতা মুক্ত শহর। ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেণী পেশার মানুষ এখানে একত্রে বসবাস করে।


 

Citizen Charter

সেবার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে উদ্যোগে জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে ও জনগনের মতামতের ভিত্তিতে জনগনের প্রত্যাশার সেবা প্রদানের অঙ্গিকা র নামা বা ঘোষনাপত্র বা সিটিজেন চার্টার (নাগরিক সনদ) প্রণয়ন করা হয়। যাতে সাধারণ জনগন বুঝতে পারে বাংলাদেশ পুলিশ কি ধরণের সেবা প্রদান করবে, কি পরিমাণ প্রদান করবে, কত সময়ের মধ্যে প্রদান করবে এবং যথাযথভাবে সেবা না পেলে তার প্রতিকারের জন্য জনগন কোথায় ও কি প্রক্রিয়ায় অভিযোগ দাখিল করবে তার বিস্তারিত বিবরণ লিপিবদ্ধ করা হয়। বাংলাদেশের প্রত্যেক নাগরিক এই অঙ্গিকার নামা বা ঘোষনাপত্র বা সিটিজেন চার্টার